সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ০৩:৪৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
দুর্ভোগকে সঙ্গী করে বরিশাল থেকে রাজধানীমুখী মানুষের ভিড় ঈদ শেষে কর্মস্থলে ফেরা, পথে পথে ভোগান্তি শারিরীক প্রতিবন্ধী সুমাইয়া খাতুন সুমিকে তার পিতা-মাতার কাছে ফিরিয়ে দিলেন চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার মেহেরপুরের ইরা একজন জনপ্রিয় নিয়মিত ফুড ব্লগ নির্মাতা লোহাগড়ায় র‌্যাব-৬ এর অভিযানে ইয়াবাসহ ১ জন আটক শিবগঞ্জে ফ্রী ফায়ার গেম খেলার জন্য স্মার্টফোন কিনে না দেওয়ায় কিশোরের আত্মহত্যা ভিক্ষুকের টাকা উদ্ধার করে দিলো বেনাপোল পৌর্ট থানা পুলিশ দর্শনায় পরিচয় গোপন করে প্রেমিকাকে কৌশলে হোটেলে নিয়ে ধর্ষণ চেষ্টা:প্রেমিক আটক ইকবাল আহম্মেদ এর হুইল চেয়ারকে ব্যবহার উপযোগী করে দিলেন-চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম দর্শনা থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে জুয়ার সরঞ্জাম ও নগদ টাকা সহ ৮ জোয়াড়ি আটক

মাগুরায় ঋণের টাকায় কেনা ইজিবাইকের জন্য খুন হলো বাবাহারা ছেলে

Reporter Name / ১৭৫ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ০৩:৪৬ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ খালা জেসমিন ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে আল আমিনকে ইজিবাইকটি কিনে দেন। মাত্র ৪ কিস্তির টাকা পরিশোধ হয়েছে। গুনতে হবে আরও ৪৮ সপ্তাহের টাকা। কিন্তু তার আগেই মঙ্গলবার রাতে আল আমিনকে গলা কেটে হত্যার পর ইজিবাইকটি ছিনিয়ে নেয়া হয়। মাগুরার চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে তিনজনকে আটক করেছে মাগুরা সদর থানা পুলিশ। পুলিশের হাতে আটক সদর উপজেলার ঘোড়ানাছ গ্রামের নুরুল হক মোল্লার ছেলে মো. শরিফুল মোল্লা (২০), জগদল গ্রামের বসির খানের ছেলে
মো. মানজাল খান (১৮) ও মহিষাডাঙ্গা গ্রামের মৃত আফজাল মণ্ডলের ছেলে
সুমন হোসেন মণ্ডল (২১) এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে নিজেদের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে উদ্ধার
করা হয়েছে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি ছুরি। খোঁজ মিলেছে চুরি যাওয়া ইজিবাইকটিরও।

এদিকে বৃহস্পতিবার দুপুরে আটক তিনজনকে সাংবাদিকদের সামনে হাজির করা হয়। সদর থানায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মাগুরা পুলিশ সুপার (এসপি) খান মুহাম্মদ রেজোয়ান জানান, বুধবার সকালে সদর উপজেলার কুকিলা গ্রামের একটি পাটক্ষেত থেকে বেঙ্গাবেরল গ্রামের মৃত হাসানের ছেলে আল আমিনের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। ছোটবেলায় বাবার মৃত্যুতে ওই সময় থেকেই একই উপজেলার মহিষাডাঙ্গা গ্রামে নানা লিয়াকত আলীর বাড়িতে থাকতো আল আমিন।

পুলিশ সুপার জানান, আল আমিনের কাছ থেকে ইজিবাইকটি ছিনিয়ে নিতেই তাকে খুন করা হয়। যার মূল পরিকল্পনাকারী হলো শরিফুল ইসলাম। সে থাকতো আল আমিনের নানাবাড়ি মহিষাডাঙ্গা গ্রামেই শ্বশুরবাড়িতে। যেখানে আল আমিনের কাছে নতুন ইজিবাইকটি দেখে লোভ হয় শরিফুলের। সেটি নিজের করে নিতে পরিকল্পনা আঁটে সে। আর সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সঙ্গে নেয় একই
ওই গ্রামের সুমন মণ্ডল, জগদল গ্রামের মানজাল খান এবং অপর একজনকে।
এ ঘটনায় নিহত আল আমিনের মা তৃষ্ণা খাতুন বাদী হয়ে বুধবার সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত অপর আসামিকে আটকের জন্য পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে বলে জানান এসপি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর