বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৪:২২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :

চুয়াডাঙ্গায় ১১৭ টি মন্ডপ দেবী দুর্গাকে ঘরে তোলার জন্য প্রস্তুত

Reporter Name / ৯৩ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৪:২২ অপরাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজা উদযাপন করতে প্রস্তুত রয়েছে চুয়াডাঙ্গার পূজা মন্ডপগুলো। এবার জেলার ১১৭টি পূজা মন্ডপে অনুষ্ঠিত হবে এ দুর্গোৎসব। ইতিমধ্যে মন্ডপে মন্ডপে প্রতিমা তৈরিসহ রংতুলির শেষ আচড়ের কাজও সম্পন্ন হয়েছে। এখন অপেক্ষা ঢাকের আওয়াজ বেজে ওঠার। আর এ আয়োজন নির্বিঘ্নে ও উৎসবমুখর করতে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে বলে দাবি স্থানীয় প্রশাসনের।

চুয়াডাঙ্গা জেলার চারটি উপজেলার মধ্যে চুয়াডাঙ্গা সদরে ৩৩টি, আলমডাঙ্গায় ৩৬টি, দামুড়হুদায় ২২টি ও জীবননগর উপজেলায় ২৬টি পূজা মন্ডপে অনুষ্ঠিত হবে দেবী দুর্গাকে বরণের নানা আনুষ্ঠানিকতা। এর মধ্যে অধিক গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে ১৭টি ও গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে ৫৭টি পূজা মন্ডপ চিহ্নিত করা হয়েছে। হিন্দু শাস্ত্র মতে, প্রতিবছর স্নিগ্ধ শরতের এই শুভ লগ্নে দেবী দুর্গাকে ঘরে তোলার জন্য অপেক্ষায় থাকে সানতন ধর্মালম্বরা। আর কয়দিন পরেই দেবীকে বরণ করা হবে। মহাধুমধামে দেবীকে বরণ করতে মন্ডপে মন্ডপে চলে নানা আয়োজন। আর তাই দশভুজা দেবীকে সাদরে বরণ করতে প্রস্তুত চুয়াডাঙ্গার মন্ডপগুলোও। জেলার প্রতিটি মন্ডপে সম্পন্ন হয়েছে শেষ সময়ের প্রস্ততি।
এখন অপেক্ষা ঢুলির ঢাক বেজে ওঠার। হাতে আর কয়েকদিন সময়। শেষ সময়ে এসেও যেন শেষ হয়নি সকল প্রস্তুতি। কোন কোন মন্ডপে রংতুলির পাশাপাশি শাড়ি গহনা দিয়ে দেবীর সৌন্দর্যকে ফুটিয়ে তোলার কাজ চলছে বেশ জোরেসোরে। এখন অপেক্ষা সকল ধর্মীয় রীতি মেনে দেবীকে বরণ করার। বড়বাজার দূর্গা মন্দির পূজা উদযাপন কমিটির সাধারন সম্পাদক কিংকর দে জানান, দেবী দুর্গার পাঁচদিনের অবস্থানের সময়ে নানা ধরনের আনন্দ আয়োজনের পরিকল্পনা করছে সনাতন ধর্মালম্বীরা। থাকছে পাঁচদিনব্যাপি নিত্য নতুন নানা অনুষ্ঠানমালা। ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবার অংশগ্রহনে এ আয়োজন সম্পন্ন করার আহ্বানও জানান তিনি। হিন্দু ধর্মালম্বদের পাশাপাশি শারদীয় দুর্গোৎসব নির্বিঘে ও উৎসবমুখর করতে প্রস্তুত রয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরাও।
চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম জানান, ১১৭টি পূজা মন্ডপই রয়েছে কড়া নিরাপত্তায়। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ ও অধিক গুরুত্বপূর্ণ মন্ডপগুলোতে রয়েছে বাড়তি নজরদারিতে। পোষাকী পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোষাকেও কাজ করবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। পুলিশের পাশাপাশি আনসার ও স্বেচ্ছাসেবকরাও দায়িত্ব পালন করবে মন্ডপগুলোতে। এছাড়া মন্ডপ ভেদে স্ট্রাইকিং ফোর্স ও কুইক রেসপন্স টিমও মাঠ কাজ করবে। সব মিলিয়ে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা বেষ্টনীতে রাখা হয়েছে মন্ডপুগলোকে। এবার দেবী দুর্গা আসছেন ঘটকে চড়ে ফিরবেও ঘটকে চড়ে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর