মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৯:২০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
রংপুর জেলায় পুলিশে কর্মরত আহাদ হোসেন পদোন্নতি প্রাপ্ত হওয়ায় র‌্যাংক ব্যাচ পরিধান করালেন রংপুর পুলিশ সুপার বর্তমান সরকার দেশ ও জনবান্ধব সরকার : মজিবর রহমান মজনু এক এক করে ১০টি গরুর মৃত্যু, থানায় জিডি দেশে চালু হলো ৯৯৯ ডেডিকেটেড গাড়ি প্রেম মেনে না নেয়ায় পোকার ওষুধ খেয়ে প্রাণ দিলেন যুবক নোয়াখালীতে অস্ত্রসহ কিশোর গ্যাং গ্রুপের ৩ জন আটক চুয়াডাঙ্গার গ্রামগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী গরুর গাড়ী আধুনিকতার ছোঁয়ায় হারিয়ে যাচ্ছে চুয়াডাঙ্গার দৌলতদিয়ার বাস কাউন্টার স্থানান্তরে জনসাধারণের ভোগান্তি – পূর্বের জায়গায় কাউন্টার ফেরানোর দাবি সচেতন মহলের দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনায় ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে বৃদ্ধা নিহত দেশে আরও ৩২ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২২৩০

বাঘাডাঙ্গার প্রবাস ফেরত মিঠুর সহযোগীতায় হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা অনুষ্ঠিত

Reporter Name / ১৪৩ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৯:২০ অপরাহ্ন

মেহেদী হাসান মিলন, জাগো দেশ,প্রতিবেদনঃ চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলায় ইতিহাস সমৃদ্ধ জনপদের গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা আজ বিলুপ্ত প্রায়। আবহমানকাল ধরে এই উপজেলায় বিনোদনের খোরাক যুগিয়েছে এই লাঠিখেলা। কিন্তু কালের বির্বতনে মানুষ ভুলতে বসেছে এই লাঠিখেলা। বাংলার ঐতিহ্যের অংশ লাঠিখেলা নিয়ে মানুষের আগ্রহ আছে। এক সময় প্রতিটি গ্রামেই লাঠি খেলার পৃথক পৃথক দল থাকতো। কিন্তু লাঠিখেলার নতুন করে কোন সংগঠন বা দল তৈরি হচ্ছেনা। দামুড়হুদা উপজেলায় বিভিন্ন ধরনের খেলা রয়েছে। এক সময় উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের সাধারণ মানুষেরা তাদের নৈমিত্তিক জীবনের উৎসব-যেমন বাংলা বর্ষবরণ, বিবাহ, সুন্নতে খাতনা, চড়ক পূজা, মহরম ইত্যাদি উপলক্ষে বিভিন্ন গ্রামে লাঠি খেলার আয়োজন করতো। এক্ষেত্রে সাধারণত কোন লাঠিয়াল দলকে ভাড়া করে আনা হতো। হাজার হাজার নারী পুরুষকে এক সময় লাঠি খেলা বেশ আনন্দের খোরাক যুগিয়েছে।দামুড়হুদার মানুষের হদয়ে ঠাঁই করে নিয়েছিলেন এ খেলাটি। দূর দূরান্ত থেকে ছুটে আসত এ খেলা দেখার জন্য।গতকাল শনিবার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের বাঘাডাঙ্গা গ্রামের কৃতি সন্তান দুবাই প্রবাসী যুবলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান মিঠুর সার্বিক সহযোগীতায় কার্পাসডাঙ্গা বাজারের গার্লস রোডে ছোটআব্বা টি স্টলের সামনে আয়োজন করা হয় ঐতিহ্যবাহী এ লাঠি খেলা।খেলা উপভোগ করা বাঘাডাঙ্গার কিতাব আলী,আশাদুল,নায়েব,ফজলু, আয়ুব,হাবিবুর,রমজান,ও কোমরপুর গ্রামের ডিউক জানান বাঙ্গালীর সাংস্কৃতির সাথে মিশে আছে এ লাঠি খেলা।মিঠুর এমন উদ্যেগ কে সাধুবাদ জানান সকলে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর