রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ১১:১৩ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
কেক কাটার মধ্য দিয়ে ৭ মার্চ ২০২১ আনন্দ উদযাপন করেছেন চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম রাণীনগর থানা পুলিশের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ দিবস উদযাপন রাণীনগরে নানা আয়োজনের মধ্যে দিয়ে উদযাপন করা হলো ঐতিহাসিক ৭মার্চের ভাষন দিবস কেক কাটার মধ্য দিয়ে ৭ মার্চ ২০২১ আনন্দ উদযাপন করেছে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ শৈলকুপায় সাড়ম্ব‌রে ঐ‌তিহা‌সিক ৭ই মার্চ পা‌লিত জয়রামপুরে চৌধুরীপাড়ার শফিকুল ইসলামকে অর্থ সহায়তা করেছেন দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান দিনব্যাপি নানান কর্মসূচীর মাধ্যমে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ ২০২১ জাতীয় দিবস উদযাপন করলো চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশ দামুড়হুদার জয়রামপুরে অবৈধভাবে ফসলী জমি কেটে মাটি উত্তোলনের অপরাধে নজরুল ইসলামকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষ্যে চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে সামনে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন দামুড়হুদায় “ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ”ও জাতীয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

জান্নাতুল’কে বাবা-মায়ের আদর স্নেহ ফিরিয়ে দিলেন পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম

Reporter Name / ৭৯ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ১১:১৩ অপরাহ্ন

হাফিজুর রহমান স্টাফ রিপোর্টার :চুয়াডাঙ্গা সদর থানার মুসলিমপাড়ার মোঃ আকবর আলী শেখ এর মেয়ে মোছাঃ তাসলিমা খাতুন (২৫)
এর সাথে গত( ২৫.০৬.২০১৪ খ্রিঃ) চুয়াডাঙ্গা সদর থানার সিএন্ডবি পাড়ার মোঃ আকবর এর ছেলে মোঃ কামরুজ্জামান জনি (৩০) এর ইসলামী শরিয়া মোতাবেক বিবাহ হয়। তাদের সংসার জীবনে জান্নাতুল নামের ৪ বছরের একটি ফুটফুটে কন্যা সন্তান জন্ম গ্রহন করে। কিছুদিন পূর্বে কামরুজ্জামান পরকিয়ায় জড়িত সন্দেহে তাদের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। সংসারে চলমান বিরোধ সংঘাতে রুপ নেয়। এমন পর্যায়ে তাসলিমা খাতুন তার পিতার বাড়ীতে অবস্থান করতে বাধ্য হয়। এমতাবস্থায় মোছাঃ তাসলিমা খাতুন তার ০৪ বছরের সন্তান ও নিজের অসহায়ত্ব থেকে রক্ষা পেতে পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গার নিকট একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গা মহোদয় উক্ত অভিযোগটি তার কার্যালয়ে অবস্থিত এবং নিজে উদ্বোধনকৃত “উইমেন সাপোর্ট সেন্টার” এ কর্মরত নারী এএসআই (নিরস্ত্র)/মিতা রানী বিশ্বাস’কে দিলে তিনি উভয় পক্ষকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে হাজির করেন। উইমেন সাপোর্ট সেন্টারের মাধ্যমে চুয়াডাঙ্গা জেলার মানবিক পুলিশ সুপার জনাব মোঃ জাহিদুল ইসলাম এর প্রত্যক্ষ মধ্যস্থতায় তাদের মধ্যে চলমান ভুল বুঝাবুঝির অবসান হয়। এসময় মোঃ কামরুজ্জামান জনি ও মোছাঃ তাসলিমা দম্পতি পূর্বের ন্যায় সংসার করতে সম্মত হয়। ফলে চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জনাব মোঃ জাহিদুল ইসলাম এর হস্তক্ষেপে তাসলিমা খাতুন ফিরে পেল তার সুখের সংসার এবং তাদের শিশু সন্তান ফিরে পেল বাবা ও মায়ের আদর স্নেহ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর