মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:০৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
প্রধানমন্ত্রীর পিএস পদে নিয়োগ পেলেন দুজন ভালোবেসে বিয়ে করে বিপাকে নবদম্পতি খুলনার স্কুলের গ্রিল কেটে চুরি হওয়া ২১টি ল্যাপটপ উদ্ধার, গ্রেফতার ৫ স্ত্রীর অধিকার পেতে প্রেমিকের বাড়িতে শিক্ষিকার অনশন সালাম না দিলেই মারধর, ছাত্রীদের ওড়না ধরে টান দিতো রবিউল অনলাইনে ভুয়া পণ্য বিক্রির অভিযোগে গ্রেফতার দুই প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে বঙ্গবন্ধুর সবচেয়ে বড় ‘ম্যুরাল’ উদ্বোধন পাইকগাছায় শেখ হাসিনার ৭৪ তম জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে ছাত্রলীগের বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি আলমডাঙ্গার শিক্ষক জামিরুল ইসলাম খান বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে তালবীজ রোপন করেছেন  চুয়াডাঙ্গায় আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস-২০২০ উদযাপন উপলক্ষে ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় জেলা প্রশাসক

সৌদি আরবে পাশবিক নির্যাতন, লাশ হয়ে ফিরলো ছোট্ট কুলসুম

Reporter Name / ২৭ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:০৫ পূর্বাহ্ন

ব্রাক্ষণবাড়িয়া প্রতিবেদকঃ পরিবারে সচ্ছলতা ফেরানোর এক বুক আশা নিয়ে কিশোরী বয়সে সৌদি আরবে গিয়েছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার নূরপুরের উম্মে কুলসুম। চাকুরি ও বেতনের পরিবর্তে নির্যাতনের শিকার হয়ে সে দেশের একটি হাসপাতালে মারা যান তিনি। কিশোরী উম্মে কুলসুম ওই গ্রামের শহিদুল ইসলামের মেয়ে। শনিবার দুপুরে নিজ গ্রামে পৌঁছায় তার লাশ, দাফন করা হয় সন্ধ্যার পর। কুলসুমের বড় বোন উম্মে হাবিবা বলেন, অনেক স্বপ্ন নিয়ে আমার বোন সৌদি আরব গিয়েছিলো। সেখানকার মানুষের অমানসিক নির্যাতনের শিকার হয়ে বিদেশ-বিভূঁইয়ে মারা যায় সে। পরিবারে স্বচ্ছলতা ফেরাতে গিয়ে লাশ হতে হলো তাকে। তিনি জানান, ৯ আগস্ট সৌদি আরবের একটি হাসপাতালে মারা যান উম্মে কুলসুম। শুক্রবার রাত দেড়টার দিকে তার লাশ রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসে। শনিবার দুপুরে তার লাশ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছায়। মাগরিবের নামাজের পর দাফন করা হয়। কুলসুমের বাবা শহিদুল ইসলাম জানান, ১৭ আগস্ট জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোতে মেয়ের মরদেহ ও আট মাসের বকেয়া বেতন পেতে একটি লিখিত আবেদন করেন তিনি। অভিযোগে তিনি জানান, স্থানীয় দালাল রাজ্জাক মিয়া ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে ১৭ মাস আগে কুলসুমকে গৃহকর্মীর কাজে সৌদি আরব পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। সেখানে গৃহকর্মী হিসেবে যোগদানের পর থেকেই কুলসুমের ওপর শারিরিক ও যৌন নির্যাতন শুরু করে মালিকপক্ষ। এক পর্যায়ে মেয়েকে ফিরে পেতে রিক্রুটিং এজেন্সির সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করার পরও কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি। চার মাস আগে কুলসুমের দুই হাঁটু ও কোমর ভেঙে দেয় সৌদি আরবের গৃহকর্তা ও তার ছেলে। কিছুদিন পর একটি চোখ নষ্ট করে সড়কে ফেলে দেয়। পরে সৌদি আরবের পুলিশ তাকে উদ্ধার করে কিং ফয়সাল হাসপাতালে ভর্তি করে। ৯ আগস্ট হাসপাতালে মারা যান কুলসুম। নাসিরনগর থানার ওসি এটিএম আরিচুল হক বলেন, দুই দেশের বিষয় হওয়ায় আমাদের পক্ষে কোনো আইনি ব্যবস্থা নেয়ার সুযোগ নেই। এছাড়া পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে আমরা কোনো নির্দেশনা পাইনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর