শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০, ০৪:৪৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
দামুড়হুদা থানা পুলিশের অভিযানে সিআর সাজাপ্রাপ্ত পলাতক ২ জন আটক দেশে একদিনে আরো ৩০ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৬৮৬ শারীরিক-মানসিক নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে স্বামীকে হত্যা করেন বিউটি লক্ষ্মীপুরে অটোরিকশা চোর চক্রের তিনজন আটক মায়ের কবরে শায়িত হলেন সাহারা খাতুন পাইকগাছায় পূজা উদযাপন পরিষদের বৃক্ষ রোপন কর্মসুচি ও আলোচনা সভা অনু‌ষ্ঠিত ফকিরহাটে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে নসিমন চালক নিহত দামুড়হুদার কুড়ুলগাছি গ্রাম থেকে দশম শ্রেণির দুই স্কুল ছাত্র গ্রেপ্তার, গ্রেপ্তারের পর বেরিয়ে এলো বাপ্পী ও শামীমের নানা কু-কীর্তি সজীব ওয়াজেদ জয় পরিষদ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত জীবননগর থানা পুলিশের মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযানে ৪২ বোতল ফেন্সিডিলসহ দুই যুবক আটক

সাতক্ষীরায় প্রেমের ফাঁদে পড়ে মৃত্যুর প্রহর গুনছেন গৃহবধু মিতু

Reporter Name / ১০০ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০, ০৪:৪৮ অপরাহ্ন

সাতক্ষীরা প্রতিবেদকঃ কলারোয়ার ক্ষেত্রপাড়ায় প্রেমের ফাঁদে পড়ে আজ জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে গৃহবধু সাবিকুর নাহার মিতু (১৭)। সাতক্ষীরা কলারোয়ার উপজেলার ১নং জয়নগর ইউনিয়নের উত্তর ক্ষেত্রপাড়া গ্রামে প্রেম কি বুঝে উঠার আগেই প্রেমের নামে প্রতারণার ফাঁদে পা দেন মিতু। মেয়ের চাচি মমতাজ বেগম জানান, প্রতিবেশি সরোয়ার মালির পুত্র হুসাইন মালির (২৩) ২০১৬ সালে প্রেমের ফাঁদে ফেলে দুই পরিবারের সম্মতি না নিয়ে ১৩ বছর বয়সেই বিয়ে করেন মিতুকে। চার বছরের মাথায় তিন তিন বার গর্ভপাত করানো হয়। গর্ভপাত করতে রাজি না হলে মিতুর উপর চলত শারিরীক ও মানষিক নির্যাতন এমনকি তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন তাকে হত্যার হুমকি দিতো। ভুক্তভোগীর পিতা ছিদ্দিকুর রহমান জানান, আমার মেয়ে প্রেমের নামে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে প্রতিবেশি সরোয়ার মালির ছেলে হুসাইন মালি পরিবারের সম্মতি না নিয়ে নাবালিকা মেয়ে মিতুকে বিয়ে করে।বিয়ের চার বছরের মাথায় তিন তিন বার গর্ভপাত করানো হয়। গর্ভপাত করতে রাজি না হলে তার উপর চালাতো শারিরীক নির্যাতন এমনকি শ্বশুর বাড়ির লোকজন পক্ষ থেকে হত্যা হুকমি ধামকি দেওয়া হতো। ফলশ্রুতিতে আজ পঙ্গুত্ব বরণ করে মৃত্যুর সাথে সম্মুখ যুদ্ধ করতে হচ্ছে মিতুকে এমনি অভিযোগ করছে সিদ্দিক মালি সহ তার পরিবারের সদস্যরা। পাশে নেই হুসাইন মালি কিংবা তার পরিবার। চিকিৎসা সহ সকল দায়ভার এখন তার দিনমজুর বাবা সিদ্দিকুর রহমানে উপর।

তিনি আরো জানান, আমার মেয়েকে নিয়ে হুসাইন মালীসহ তার পরিবার যে নির্যাতন করেছে ও গর্ভপাতের মত জঘন্য কাজ করে তার পাশে নেই আমি এর সঠিক বিচার চাই। অপরদিকে ছেলের পিতা সরোয়ার মালি জানান, তার পুত্রবধু মিতুর উপর কোন প্রকার নির্যাতন করা হয়নি এবং এই গর্ভপাতের বিষয়ে তিনি মেয়ে পিতার পরিবারকে দায়ী করেন। এ বিষয়ে হুসাইন মালির সাথে মোবাইল ফোনে বার বার যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। ইউপি চেয়ারম্যান শামছুদ্দিন আল মাছুদ বাবু জানান, আমি কয়েক বার সুবিচার করেছি কিন্তু বিচার মানেনি সরোয়ার মালির ও তার পরিবার। তিনি আরো জানান আমি ৫ সদস্যোর কমিটি গঠন করেছিলাম সেই কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সরোয়ার মালিকে পূর্বের চিকিৎসার খরচ বাবদ ছিদ্দিক মালি মেয়ের পক্ষকে ৩ লক্ষ ৫০হাজার টাকা দিবে এবং বর্তমানে মিতুর চিকিৎসার খরচ বাবদ মেয়ের পিতা বহন করবে মোট চিকিৎসার ৩ ভাগের এক ভাগ এবং ছেলের পিতা ৩ ভাগের দুই ভাগ। তাৎক্ষনিক বিষয়টি সরোয়ার মালি (ছেলের পিতা) মেনে নিলেও পরবর্তি সময়ে সেটি অশ্বিকার করেন বলে জানিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান। ভুক্তভোগী পরিবারটি পুলিশ প্রশাসনকে সঠিক তদন্তের মাধ্যমে শাস্তিমুলক ব্যবস্থা গ্রহনের সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর