মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ১০:৫০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানের ভাষনের ৫০ বছর পালন উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্প মাল্য অর্পন তালা’র ৬৭জন নৌকা প্রতিক প্রত্যাশীর ১১জনই খেশরা ইউনিয়নের খাউলিয়ায় আলহাজ্ব মাস্টার সাইদুর রহমান কে নৌকার মাঝি হিসাবে চায় দলীয় নেতাকর্মীরা নারী দিবসের প্রাক্কালে আলমডাঙ্গা গোবিন্দপুরে এক বোনের জমি ,আরেক বোন জবর দখলের চেষ্টা ‘স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃতি ও আমরা’লেখক আলমডাঙ্গায় ২ বেকারিতে ২৯ হাজার টাকা জরিমানা জীবননগরে পাট চাষিদের এক দিনের প্রশিক্ষণ জমি নিয়ে দুই ছেলের মারামারি দেখে বাবার মৃত্যু ফলোআপ: ছোট্ট শিশু কোলে নিয়ে ভাইরাল ইউএনও দিলারা ছদ্মনামে মোবাইলে প্রেম, ডেকে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

চুৃয়াডাঙ্গায় লকডাউনে চলছে চোর-পুলিশ খেলা: সামাজিক দূরত্ব মানছে না কেউ,

Reporter Name / ১৩০ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ১০:৫০ পূর্বাহ্ন

শরিফুল ইসলাম রোকন: চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গার বাজার ও মার্কেটে চলছে চোর পুলিশ খেলা। মানছে না সামাজিক দুরত্ব। আলমডাঙ্গার হাট-বাজারগুলোতে কমছে না মানুষের উপস্থিতি। সংক্রমনের ঝুঁকি বাড়াচ্ছে সামাজিক দুরত্ব না মেনে চলাফেরায়। বাজার ও মার্কেটে ম্যাজিষ্ট্রেড ও পুলিশ ঢুকলেই কিছু সময়ের জন্য ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে। প্রশাসনের লোক চলে যাওয়ার পরপরই আবার তারা পূর্বের মত চোর পুলিশ খেলায় মেতে উঠছে। করোনা মোকাবেলাই সকাল থেকে ২টা পর্যন্ত বাজার ও মুদি দোকান খোলা রাখায় নিয়ম বেধে দিয়েছেন প্রশাসন। কিন্তু কিছু অসাদু ব্যবসায়ী প্রায়ই প্রতিদিনই সকাল থেকে বেলা ১২ পর্যন্ত তাদের দোকানের সামনে গিয়ে বসে থাকছে। কাস্টমার আসলেই দোকনের তালা খুলে ভিতরে নিয়ে সাটার নামিয়ে দিয়ে বেচা কেনা করছে বলে প্রতিনিয়ত অভিযোগ উঠেছে। বিভিন্ন মহল থেকে উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশকে মোবাইল ফোনে বিষয়টি অবগত করছেন। উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশ প্রতিদিনই মার্কেটে ও বাজারে অভিযান চালাচ্ছে। অভিযানে গেলেই অসাদু দোকানদাররা প্রশাসন ও পুলিশের উপস্থিতি টেরপেয়েই দোকানের সামনে থেকে সরে যাচ্ছে। প্রশাসন ও পুলিশ চলে গেলেই তারা আবার পূর্বের ন্যায় অবস্থান শুরু করছে। শুরু করছে আবারও বেচাকেনা।

৩ মে রবিবার শহরের আলমডাঙ্গা মার্কেট ও ‘তহ’ বাজার এবং বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে হাট বাজার গুলোতে মানুষ ভিড় করছে। সামাজিক দূরত্ব না মেনে
চলছে কেনাবেঁচা। স্বাভাবিক সময়ের মতোঠেলাঠেলি করে বাজার করছেন অধিকাংশ ক্রেতা বিক্রেতা গণ। ক্রেতাদের মুখে নিম্নমানের মাস্ক পরা থাকলেও বেশির ভাগ বিক্রেতারা ব্যবহার করছেন না মাস্ক । করোনা মোকাবেলাই আলমডাঙ্গা উপজেলার সকল প্রবেশ মুখে নিজেদের স্বাস্থ্য ঝুকি আছে জেনেও পুলিশ পাহারা জোরদার করেছে জেলা পুলিশ সুপার ও আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ। অন্য উপজেলা থেকে বিনা কারণে কোন ব্যক্তি আলমডাঙ্গা উপজেলায় প্রবেশ করতে পারছে না। এছাড়াও আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ আলমগীর কবীরের নির্দেশে কয়েকটি টিম নিয়মিত শহরের বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে টহল জোরদার করেছে। আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ লিটন
আলী ও সহকারী কমিশনার ভ’মি মো: হুমায়ন কবীর নিজেদের ও নিজের পরিবারের কথা চিন্তা না করেও প্রতিদিন উপজেলার বিভিন্ন বাজার ও মার্কেটে
সেনাবাহিনী ও পুলিশং টিম নিয়ে অভিযান অব্যাহত রেখেছেন। সকাল থেকে রাত অবদি, করোনা মোকাবেলায় আলমডাঙ্গা উপজেলায় সারাধন মানুষকে সচেতন ও অসাদু ব্যবসায়ীদের সাথে যুদ্ধ করে যাচ্ছে। প্রশাসন ও পুলিশ বিভাগের পক্ষ থেকে টহল, প্রচারণা জোরদার করলেও বেশির ভাগ মানুষ তা অগ্রাহ্য করছেন। এ ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন সচেতন মহল।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর