বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৫:৫০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
আজ ২৫ ফেব্রুয়ারি: পিলখানা হত্যা দিবস ইতিহাসে আজকের এই দিনে পরীক্ষার দাবিতে ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের ফের সড়ক অবরোধ দামুড়হুদার আরামডাঙ্গায় নাইট ক্রিকেটে সেলিম একাদশ জয়ী শুটিং শুরুর একদিন আগে পরিচালক শাহীন সুমনের তত্ত্বাবধানে নির্মিত তিনটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন নায়ক কায়েস আরজু খেলাধুলার মধ্য দিয়ে বায়েজিদের ব্যবসায়ীরা প্রশান্তি খুঁজে পেয়েছে – আ জ ম নাছির উদ্দীন বোয়ালখালীতে আইন শৃঙ্খলা সভায় এমপি মোছলেম উদ্দিন :মাদকের বিরুদ্ধে আরো সোচ্চার হতে হবে পরীক্ষিত নেতাকর্মীরা দলের নেতৃত্বে এলে শেখ হাসিনার হাত আরো শক্তিশালী হবে -পাবনায় তথ্যমন্ত্রী আলমডাঙ্গায় একই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মারামারির ঘটনায় পৃথক দুটি থানায় অভিযোগ উঠেছে সিরাজদিখানে দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, ৬ জন টেটাঁ বিদ্ধসহ আহত ১৫ ‘দেশের ৮০ ভাগ মানুষকে টিকা দেয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ’

ক্ষুর্ধাত পাখীদের খাবার দিলেন পাখীপ্রেমী দামুড়হুদার এসিল্যান্ড মহিউদ্দীন

Reporter Name / ১১২ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৫:৫০ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বেলা সাড়ে ১২ টা। জরুরী কাজে চুয়াডাঙ্গা চৌরাস্তার মোড়ে পৌছানো মাত্রই প্রশাসনের গাড়ি দেখে কয়েকশো শালিক পাখির জটলা। থমকে গেলেন দামুড়হুদা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: মহি উদ্দিন। তাকে দলবেঁধে ঘিরে ধরে পাখা ঝাপটিয়ে কিচির-মিচির শব্দে কি যেন বলতে যাচ্ছে পাখিরদল। ক্ষুধার্ত পাখিদের আদরমাখা পাখা ঝাপটানোর দৃশ্য দেখে সহজেই বুঝতে পারলেন পাখিদের আকুতি। তিনি তাৎক্ষনিকভাবে তাদের খাবারের ব্যবস্থা করলেন। আপন হাতে খাবারগুলো ছিটিয়ে দিলেন সড়কে। এ যেন অন্য রকম এক ভাল লাগা। যা কোটি টাকা দিয়েও কেনা অসম্ভব। এই দিনটির কথা সারা জীবনেও ভুলবেনা তিনি। অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে দামুড়হুদা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: মহি উদ্দিন বলেন, গাড়ী থামাতেই ঘিরে ধরলো হাজারো পাখি। মনে হলো যেন বলছে আমাদের খাবারের প্রধান উৎস হোটেল, রেস্টুরেন্টসহ বেকারিগুলো তোমরাই বন্ধ করেছো। সুতরাং এখন তোমাকেই খেতে দিতে হবে। ক্ষনিকের জন্য হারিয়ে গেলো মন। শুধুই ভাবছি সৃষ্টিকর্তার কথা। কি তার লীলা খেলা। করোনার ছোবলে যখন থমকে গেছে গোটা বিশ্ব। বন্ধ রয়েছে সমস্ত খাবারের হোটেল। এ যেন লকডাউন ভেঙ্গে খাবারের জন্য পাখিদের আর্তনাদ। বিধাতা তার গভীর ভালোবাসা দিয়ে সৃষ্টি করেছেন এই সুবিশাল বিশ্বব্রহ্মান্ড। মানুষের প্রধান কর্তব্যই হচ্ছে স্রষ্টার উপাসনা করা। বিভিন্নভাবে বিভিন্ন উপায়ে স্রষ্টাকে উপাসনা করা যায়। এরমধ্যে শ্রেষ্ঠ পথ হচ্ছে তাঁর সৃষ্ট জীবকে ভালোবাসা। জীবের প্রতি ভালোবাসার পথ ধরেই স্রষ্টাকে খোঁজ করার নির্দেশনাও রয়েছে ধর্মীয়ভাবে। সৃষ্টির ভেতর দিয়েই স্রষ্টার প্রকাশ। প্রত্যেক সৃষ্টির মাধ্যেই তিনি বিরাজমান। এ সত্য সকল মহাজ্ঞানী ধর্মপ্রবর্তকরা তা একবাক্যে স্বীকারও করেছেন। তাঁর সৃষ্ট জীবকে সেবা করলে প্রকারান্তরে তাঁকেই সেবা করা হয়। তাই আসুন মানুষসহ সকল প্রাণিকুলের পাশে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর