রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১০:৩৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
কুষ্টিয়ায় হাইওয়ে পুলিশের অভিযান বিদেশী পিস্তল ও গুলি উদ্ধার কালীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হলেন আ’লীগের নৌকার প্রার্থী আশরাফুল আলম আশরাফ ঝিনাইদহ কোটচাঁদপুরে সাংবাদিক বোরহান হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন! মহেশপুরের পৌর মেয়র নির্বাচিত হলেন আব্দুর রশিদ খাঁন কালীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে অদ্ভুত কান্ড :প্রার্থীর সমর্থনে বোতলে মোড়ানো শরীর দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে শিক্ষাকে বহুমাত্রিক করতে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী বন্যপ্রাণী রক্ষায় বঙ্গবন্ধু পদক পাচ্ছেন ৩ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা ব্যয় নির্ধারণ করবে সরকার পদ্মার চরে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ৪ জন গুলিবিদ্ধসহ আহত ১০ ছাগলে কাঁঠাল খাওয়ায় ফালা দিয়ে চাচাকে খুন

কুষ্টিয়ায় মাদকাসক্ত স্বামী ও দেবরের হাতে শারীরিক নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ

Reporter Name / ১২৬ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১০:৩৬ অপরাহ্ন

কুষ্টিয়া প্রতিবেদকঃ কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বাজালিয়া পাড়া এলাকার এক গৃহবধূকে মারধর করেছে মাদকাসক্ত স্বামী ও দেবর। এবিষয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন গৃহবধূ আসমা সুলতানা। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ১৭ এপ্রিল বিকেলে বটতৈল ভাদালিয়া পাড়া এলাকার মৃত ফজলুর রহমানের ছেলে কামাল হোসেন (৩৪), মাসুদ রানা (৩৮), কামাল হোসেনের স্ত্রী পায়রা(২৮), মৃত ফজলুর রহমানের স্ত্রী মমতাজ পারভীন (৬০) কে আসামি করা হয়। আসামি মাসুদ রানা ওই গৃহবধূর স্বামী। তাদের দুই টি সন্তান রয়েছে। মাসুদ রানা একজন মাদক সেবি। মাসুদ রানা এর পর আরো দুই টি বিয়ে করেছে। এর পর মাসুদ রানা তার সন্তান দের কোন খরচই বহন করে না। সবসময় মাদক সেবন করে স্ত্রীকে নির্যাতন করে। এবিষয়ে ইতিপূর্বে কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছিলেন মাসুদ রানার স্ত্রী। এই অভিযোগ করার পর মাসুদ রানা পলাতক ছিল। পরে মাসুদ রানার ভাই কামাল হোসেন আমাকে জমি লিখে দেওয়ার কথা বলে ৪০ হাজার টাকা নেয়। কিন্তু সে এখন পর্যন্ত কোন জমি দেয়নি এবং টাকাও ফেরত দেয়নি। এই টাকা ফেরত চাইলে কামাল হোসেন গালিগালাজ করে করতে থাকে। গালিগালাজ করতে নিষেধ করলে কামাল হোসেন, পায়রা, মাসুদ রানা ও মমতাজ পারভীন মিলে গৃহবধূ আসমা সুলতানাকে কাঠের বাটাম এবং লোহার রড দিয়ে এলোপাথাড়ি মারধর করে। হত্যার উদ্দেশ্যে গলা টিপে ধরে কামাল হোসেন। হত্যা করতে ব্যার্থ হয়ে তারা আমাকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করবে বলে হুমকি দেয়। এসময় তারা আমার গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন ও স্বর্ণের কানের দুল ছিনিয়ে নেয়। এদিকে এই অভিযোগের ভিত্তিতে কুষ্টিয়া মডেল থানার এএসআই ইসমাইল ভাদালিয়াপাড়া ঘটনাস্থলে যায়। এএসআই ইসমাইল আসামিদের আজ (রবিবার) সকাল ১০টাই থানায় ডাকেন। থানাতে ডেকে সরি বলিয়ে ছেড়ে দেয়া হয় বলে জানান আসমা সুলতানা। এদিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, কামালের ছোট ভাই ইকবালের পরিত্যক্ত ঘরে মাদক সেবনের সরঞ্জাম পাওয়া যায়। সেখানে বসে ইয়াবা সেবনের জলসা বসে বলে এলাকাবাসী জানায়। কামাল হোসেন এই আড্ডা বসায় বলে এলাকাবাসী জানায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর