শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২:৩২ পূর্বাহ্ন

আজকে সবাই সত্যি বলুন:সত্যি বলবো আমিও

Reporter Name / ১১৫ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২:৩২ পূর্বাহ্ন

লাইফ স্টাইল,জাগো দেশ, কার্পাসডাঙ্গা অফিসঃ আজকের যাঁরা আমার লেখাটা পড়বেন। তাঁদের একট পরীক্ষা নেবো। পরীক্ষাটা হলো সত্যি বলার।আমার লেখার শেষের দিকে আপনাদের কাছে যে প্রশ্ন রেখে যাবো তার সঠিক সত্য উত্তর দেবেন।পরীক্ষা নেবার আগে তো প্রস্তুতি থাকতে হয়। কোন বিষয়ে পরীক্ষা নেবো সেটা জানা এবং তার সম্পর্কে ধারনা থাকতে হবে।না হলে তো প্রশ্নকর্তা যেমন অমূলক প্রশ্ন করে সবার কাছে হাসির পাত্র হবেন তেমনি পরীক্ষাত্রীও প্রশ্ন কমন আসেনি বলে প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যাবেন।তাই আপনারা যাতে প্রশ্নটির উত্তর এড়িয়ে না যান। সেজন্য যে বিষয়ে প্রশ্ন করবো সেটা নিয়ে আলোচনায় আসি।আমার আলোচনাতে আমার লেখার টপিক্স সত্যি বলবো আমিও তার সাথে পুরোপুরি মিল থাকবে এবং সত্যিটাই বলে যাবো আমি। সব শেষ থাকবে আপনাদের জন্য আমার করা কাংখিত সেই প্রশ্ন।এবার আমার সত্যি বলার স্বীকারোক্তী শুরু করছি।আজ বেশ কয়েকদিন হলো আমি চরম আতংকে দিন যাপন করছি।যবে থেকে জানতে পেরেছি বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস কোভিড -১৯ এ কেউ আক্রান্ত হয়েছেন।তারপর যতদিন গেছে যত দিন যাচ্ছে ততটা আরো আতংকিত হচ্ছি।মৃত্যুভয় কাজ করছে সারাক্ষন।নিজের মনটাকে তাড়িয়ে নিয়ে বেড়াচ্ছে অজানা এক ভীতি।দেখতে দেখতে আজ সোনার বাংলাদেশটা লকডাউন হয়ে গেছে।চিরচেনা বাজার ঘাট আজ স্থব্ধ।নেই কোন কোলাহল। আজকাল প্রায়ই কোন মানুষের মুখে হাসি দেখিনা।সব কিছু মনে হয় কেমন জানি এলোমেলো হয়ে গেছে।কোন কিছুই যেন স্বাভাবিক নেই।স্বাভাবিক নেই আমার চিন্তা,চেতনা, মন মানসিকতা। স্বাভাবিক নেই পরিবেশ, পরিবার পরিজন বন্ধু বান্ধব কেউ।সব কিছুই যেন অস্বাভাবিক নিয়মে অস্বাভাবিক গতিতে চলছে।আজকাল খুব একটা বাড়ি থেকে বের হয়না। আর প্রয়োজন বোধে বাড়ি থেকে বের হলেও বাজারে গেলে খুব একটা মানুষের সাথে কথা বলা বা পাশাপাশি বসে গল্পো করা হয়না।আর এর একটাই কারন করোনা ভাইরাস।কেউ জানিনা কে আক্রান্ত এই ভাইরাসে। আমি আপনি কে আক্রান্ত জানিনা।সাংবাদিকত করতে যেয়ে সারাদিন নিউজ কাভার করে আবার রাতে লেখালেখি শেষ করে খেতে ১২ টা বেজে যায়।তারপর একটু টিভি অন করে ডুবে যায় খবরে। ঘুমাতে যেতে রাত ২ টা কখনো বা ৩ টা বেজে যায়।তবে সকালে একটু দেরী করে ঘুম থেকে উঠি প্রায়ই।৯থেকে ১০ টা বেজে যায়।কখনো একটা দিন ফ্রী পেলে তো দুপুরে ঘুম থেকে উঠি।আবার বিকালে ঘুমিয়ে যায়।পুরো দিনটাই ঘুমে কাটিয়ে দিই।আজকাল আর ঘুম আসেনা।ঘুমালে আর ঘুম ভাঙ্গবে কিনা এই চিন্তায় থাকি।চারিদিকে যে অবস্থা পুরো পৃথিবিতে যে হারে মানুষ মরছে। বিশ্বাসই হয়না আমি বেঁচে আছি।আর বেঁচে থাকবো কিনা।প্রত্যেকটা সেকেন্ড প্রত্যেকটা মিনিট, ঘন্টা আজ মনে হয় খুবই মূল্যবান। সৃষ্টিকর্তাকে ধন্যবাদ জানাই তিনি আমার মত পাপী বান্দাকে বাঁচিয়ে রেখেছেন বলে।সত্যি যদি এ যাত্রাই বেঁচে যায়। পরিবার পরিজন শুভাকাঙ্গী সহ দেশবাসীকে আল্লাহ খুব ভালো রাখেন আর একটি মৃত্যুও না দেন করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশে। তবে সত্যি করেই মনে হবে ২০২০ সালে নতুন করে জন্ম হয়েছে আমার।আপনাদের কাছে আমার প্রশ্ন আমার যেমন মনে হয় সত্যিই বেঁচে আছি কিনা তেমনি কি আপনাদের ও মনে হয়। ও আপনারা যদি বেঁচে যান এ ভাইরাস থেকে তবে আপনাদেরও কি আমার মত মনে হবে, যে ২০২০ সালে মহান রাব্বুল আলামিন নতুন করে আবার আমাদের বেঁচে থাকার সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছেন।আশা করি আমার প্রশ্নের সত্যি উত্তরটা কমেন্টস এ লিখবেন।

লেখকঃ

মেহেদী হাসান মিলন সাংবাদিক ও কলামিষ্ট


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর